শনিবার , ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. আইন আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. ইতিহাস ও ঐতিহ্য
  4. কৃষি
  5. ক্যাম্পাস
  6. জাতীয়
  7. তথ্য ও প্রযুক্তি
  8. নির্বাচনী সংবাদ
  9. ফিচার
  10. বিনোদন
  11. মুক্ত মন্তব্য
  12. রাজনীতি
  13. সম্পাদকীয়
  14. সাক্ষাৎকার
  15. সারাদেশ

বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ এর দিনাজপুর জেলা শাখা কর্তৃক গণ অনশন ও গণ অবস্থান কর্মসূচী

প্রতিবেদক
FIRST BANGLA NEWS
সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২৩ ৩:৫৬ অপরাহ্ণ

মো:মোমিনুল ইসলাম, দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি

 “ধর্মীয় রাষ্ট্র নয় ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র চাই, ধর্ম যার যার রাষ্ট্র সবার” এই স্লোগানকে সামনে রেখে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ

হিসেবে ৭ দফা দাবির প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য

পরিষদের জেলা শাখার অঙ্গসংগঠন সমূহ ও জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের পৌর ওউপজেলা শাখা সমুহ কর্তৃক গণ অনশন ও গণ অবস্থান কর্মসূচী পালিত হয়।

গতকাল ১৫ই সেপ্টেম্বর শুক্রবার ২০২৩ দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সন্মুখে ১৩টি উপজেলা থেকে আগত নেতৃবৃন্দদের অংশগ্রহনে সকাল-সন্ধ্যা গণ অনশন ও গণঅবস্থান কর্মসূচীতে জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি স্বরূপ বকসী বাচ্চু

সভাপতির বক্তব্যে বলেন বার বার আমাদেরকে সমাজের কলংকৃত ও সামপ্রদায়িকশক্তির বিরুদ্ধে ব্যক্তিরা আঘাত করছে তারা দেশের শত্রু ও জনগনের শত্রু। তাদের দ্বারা এই দেশ কোন উপকার পাইনি। স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই দেশকে আগলে রেখেছিলেন সব জাতি ধর্ম ও বর্ণকে একত্রিত করে। তারই নির্দেশনায় আজ সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার

বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা সক্ষম হবো। আগামীতে আমাদের প্রানের দাবিগুলো মেনে নিতে সরকার প্রধানের কাছে এবং গন-অনশনের কর্মসূচী সফলভাবে পালন করার জন্য নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দেন।

গণ অনশন ও গণ অবস্থান কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ

হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য রপরিষদের জেলা শাখার সভাপতি সুনীল চক্রবর্তী,

সাঃ সম্পাদক রতন সিং, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের জেলা শাখার সংগ্রামী সাঃ সম্পাদক উত্তম কুমার রায়, যুগ্ম সাঃ সম্পাদক রঞ্জন সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক সনজিৎ রায়, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের পৌর শাখার সভাপতি রনজিত কুমার দাস,

সাঃ সম্পাদক গৌরাঙ্গ রায়, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পৌর শাখার সাঃ সম্পাদক রাজু কুমার দাস, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ জেলা শাখর সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু বিশ্বাস, যুব ঐক্য পরিষদ জেলা শাখার সভাপতি ড. গৌরাঙ্গ সরকার, সাঃ সম্পাদক জয়ন্ত মিশ্র, মহিলা ঐক্য পরিষদের সাঃ সম্পাদক মল্লিকা দাস, ছাত্র ঐক্য পরিষদ এর সভাপতি অমৃত রায়, জেলার ক্ষত্রীয়সমিতির সাঃ সম্পাদক শ্রী মৃতুঞ্জয় কুমার রায়, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের চিরিরবন্দর উপজেলা শাখার সভাপতি ডাঃ নবীন রায় ও খানসামা উপজেলা শাখার সভাপতি অধ্যাপক জিতেন্দ্র রায়, বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের চিরিরবন্দর উপজেলা শাখার সাঃ সম্পাদক নারায়ন চন্দ্র প্রমুখ।

উল্লেখ যে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর ৭ দফা দাবির জন্য আগামীদিনের আন্দোলনকেবাস্তবায়িত করার তাগিদে সকল উপজেলা থেকে আগত নেতা-কর্মীদের প্রতি বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখার নেতৃবৃন্দরা পরামর্শ দেন। ৭ দফা দাবিগুলো হলো সংখ্যালঘু

সুরক্ষা প্রণয়ন, বৈষম্য বিলোপ আইন প্রণয়ন, দেবোত্তর সম্পত্তির সংরক্ষণ

আইন প্রণয়ন, জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন গঠন, অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পন আইন যথাযথ বাস্তবায়ন, পার্বত্য শান্তি চুক্তি ও পার্বত্য ভুমি কমিশন আইনের

যথাযথ বাস্তবায়ন, সমতল আদিবাসীদের জন্য পৃথক ভুমি কমিশন গঠন ।

সর্বশেষ - জাতীয়

আপনার জন্য নির্বাচিত